সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪০ অপরাহ্ন

‘অভিযোগ পেলেই তাৎক্ষণিক আইনি ব্যবস্থা’

অপরাধ দমনে ও অপরাধীদের অবাধ বিচরণ বন্ধে ঝিনাইদহে প্রথম চালু হল বিট পুলিশিংয়ের অফিস। ঝিনাইদহ পৌরসভার ৫ নাম্বার ওয়ার্ডের ব্যাপারীপাড়া (শাপলা চত্বর) এলাকায় ভাড়া করা বাড়িতে বিট পুলিশিংয়ের প্রথম অফিস উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার সকাল ১০টার দিকে পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান এ অফিস উদ্বোধন করেন।

এ সময় অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবুল বাশার, সদর থানার ওসি মিজানুর রহমানসহ জেলার ৬ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ এবং পৌর কাউন্সিলারবৃন্দ।

এ সময় পুলিশ সুপার জানান, ঝিনাইদহে অপরাধীরা আর বিচরণ করতে পারবে না। ঝিনাইদহ জেলার ৬টি উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে এবং পৌরসভা এলাকায় ৩টি ওয়ার্ড মিলিয়ে একটি করে বিট পুলিশিং অফিস গড়ে তোলা হবে। সেই হিসেবে এ জেলায় ৮৫টি বিট পুলিশিং কার্যালয় খোলা হবে।

তিনি জানান, এ সব বিটে একজন করে এসআই, একজন এএসআই এবং ৩ জন করে পুলিশ কনস্টেবল থাকবেন। দিন-রাত তারা পাড়া-মহল্লা এবং গ্রামের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন। সেই সঙ্গে প্রকাশ্যে ও গোপনে অপরাধীদের গতিবিধির ওপর নজরদারিসহ সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে থাকবেন। এ ছাড়াও তারা মানুষের কাছ থেকে অভিযোগ গ্রহণ করবে এবং তাৎক্ষণিকভাবে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারবেন। এতে করে পুলিশ-জনতা কাছাকাছি থাকার সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে মনে করেন পুলিশ সুপার।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এলাকায় কোনো ধরনের অপরাধ সংঘটিত হলে বিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জবাবদিহি করতে হবে। থানা পুলিশের মাধ্যমে সর্বক্ষণ তাদের কার্যক্রমের ওপর নজর রাখারও ব্যবস্থা রয়েছে বলে জানান জেলা পুলিশের প্রধান এ কর্মকর্তা।

জানা গেছে, জনতার পুলিশ গড়ে তুলতে শিগগিরি সারা দেশে সম্পূর্ণ নতুন এক ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। এর নাম দেয়া হয়েছে বিট পুলিশিং। পর্যায়ক্রমে প্রত্যেক ইউনিয়ন এবং পৌরসভা এলাকায় এ কার্যক্রম চালু করা হবে। বিট পুলিশিংয়ের কার্যক্রম চালু করার মূল লক্ষ্য অপরাধ দমন। এর মাধ্যমে জনগণের আস্তাভাজন পুলিশ বাহিনী গড়ে তোলা।

Share this:

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2014
Design & Developed BY ithostseba.com